টেক্সটাইল ইয়ুথ লিডারশিপ সামিট উদযাপিত

তরুণ বস্ত্র প্রকৌশলী ও শিক্ষার্থীদের উৎসাহ জোগাতে প্রথমবারের মতো ‘টেক্সটাইল ইয়ুথ লিডারশিপ সামিট’ উদযাপন হয়েছে। সামিটের এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল “ইনোভেশন অ্যান্ড ইন্ট্রিপ্রিনিউরশিপ ফর ট্রান্সফরমেশন”। শুক্রবার বিকেলে ঢাকার কাকরাইলের ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারস বাংলাদেশ (আইডিইবি) মিলনায়তনে সামিটটি শুরু হয়।

দেশের বস্ত্রশিল্প নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করা রিসার্চ ডেভেলপমেন্ট এন্ড প্রোমোশনাল সার্ভিস অর্গানাইজেশন ‘বাংলাদেশ টেক্সটাইল টুডে’ এর ১০ম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে সামিটটির উদ্বোধন করেন দ্য ইনস্টিটিউশন অব টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস অ্যান্ড টেকনোলজিস্ট (আইটিইটি) এর সভাপতি ও হ্যামস গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জি. শফিকুর রহমান।

এসময় বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজি (বিইউএফটি) এর প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. ইঞ্জি. আইয়ুব নবী খান, জাবের-জুবায়ের ফেব্রিকস লি. (নোমান গ্রুপ) এর ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর মো. আবদুল্লাহ জাবের, ডাইসিনের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মো. আমানুর রহমান, আকিজ গ্রুপের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এম আর জামিল টিপু, অ্যাসেনশিয়াল ক্লোদিং লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সাইফুল ইসলাম খান, লুমিনেন্ট ডি অ্যান্ড এ’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর আরিফ মোহাম্মদ, বিকেএমইএ’র এক্স-ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হাতেম, পলমল গ্রুপের জেনারেল ম্যানেজার (অ্যাডমিন ও ডেভেলপমেন্ট) এবং বাংলাদেশ অ্যাপারেল প্রফেশনালস সোসাইটি (ব্যাপস) মেজর অব. মো. মিজানুর রহমান, তরুণ ক্রিকেটার মেহেদি হাসান মিরাজসহ খ্যাতনামা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, টেক্সটাইল কোম্পানি, বায়িং হাউজ, ব্র্যান্ডের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, টেক্সটাইল ট্যালেন্ট হান্ট প্রতিযোগিরা উপস্থিত ছিলেন।

মোট তিনটি সেশন যথাক্রমে ট্রান্সফরমেশন, ইনোভেশন ও ইন্ট্রিপ্রিনিউরশিপে সাজানো ছিল পুরো প্রোগ্রাম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন টেক্সটাইল টুডে’র সম্পাদক-প্রকাশক তারেক আমিন।

প্রধান অতিথি ইঞ্জি. শফিকুর রহমান বলেন, “দেশের অর্থনীতি বস্ত্রখাতের উপর দাঁড়িয়ে আছে। দেশের বিভিন্ন ফ্যাক্টরীতে এখনো দক্ষ লোকের অভাব থাকায় বিদেশি পারদর্শী এনে মিলিয়ন ডলার ব্যয় করতে হচ্ছে। সরকার ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত আয়ের দেশে পরিণত করার যে ঘোষণা দিয়েছে বস্ত্রখাতকে ব্যতিরেখে সেটা কোনোভাবেই বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না।

লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সরকারের তরফ থেকে আরও কার্যকরী উদ্যোগের প্রয়োজন। পাশাপাশি বৈশ্বিক প্রতিযোগিতামূলক পোশাকশিল্পে টিকে থাকতে হলে দক্ষ ও যোগ্য হয়ে গড়ে উঠতে হবে দেশের তরুণ নেত্বত্বের।”

তাছাড়া বক্তারা বস্ত্রশিল্পের বর্তমান প্রেক্ষাপট, ভবিষ্যৎ রুপরেখা, টেকসই উন্নয়ন প্রণোয়নসহ যাবতীয় বিষয়ে জোর প্রদান করেন। এরপর সম্মেলনে কেক কেটে টেক্সটাইল টুডে’র ১০ বর্ষপূর্তি উদযাপন করেন আমন্ত্রিত অতিথিরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *