এদিক সেদিক হলেই ছিঁড়তে পারে হাত-পায়ের রগ – পূজা

পর্দায় নিজের চরিত্রকে ফুটিয়ে তুলতে একজন অভিনেত্রীকে কঠোর পরিশ্রম করতে হয়। অনেক সময় জীবনের ঝুঁকি নিতেও পিছপা হন না কেউ কেউ! ‘মাসুদ রানা’ সিনেমার সোহানা চরিত্রের জন্য জিমন্যাস্টিকের কষ্টসাধ্য শারীরিক বিদ্যা শিখতে কঠিন ঝুঁকি নিচ্ছেন পূজা চেরি।

এ প্রসঙ্গে নায়িকা গণমাধ্যমকে জানান, ‘জিমন্যাস্টিক খুবই কষ্টের খেলা। অনেক সময় হাত-পায়ের রগ ছিঁড়ে যেতে পারে, মৃত্যুও হয়। শরীর ফ্লেক্সিবল না হলে এই খেলা সম্ভব নয়। সবচেয়ে বড় কথা, সারা বছরই অনুশীলনের মধ্যে থাকতে হয়।’

তবে এই চরিত্রে কাজ করতে খুব একটা সমস্যায় পড়তে হয়নি পূজাকে। তার ভাষ্য, ‘এর আগে জাজের অন্য একটি সিনেমায় এ ধরনের চরিত্রে কাজের কথা ছিল। সে সময় আমি প্রশিক্ষক রেখে টানা ছয় মাস অনুশীলন করেছি। ২-৩ বছর ধরে কাজের ফাঁকে জিমন্যাস্টিকস অনুশীলন করি। এছাড়া ছোটবেলা থেকেই আমার শরীর ফ্লেক্সিবল।’

গেলো ৩ মার্চ দিনভর বিকেএসপিতে পূজার ‘ফ্রন্ট টার্ন স্প্লিট’ ও ‘ব্যাক সামারসল্ট ব্যাক টার্ন’–এর দৃশ্যধারণ করা হয়েছে। তার কাজ দেখে মুগ্ধ পরিচালক সৈকত নাসির। তিনি বলেন, ‘পূজার কাজে আমি খুবই খুশি। শুটিংয়ের সময় বিকেএসপিতে বেশ কয়েকজন জিমন্যাস্টিক প্রশিক্ষক ছিলেন। পূজার কসরত রপ্ত করা দেখে তারাও বেশ অবাক হয়েছেন। সোহানা চরিত্রটি নিখুঁতভাবে ফুটিয়ে তুলতে প্রশিক্ষকেরাও বেশ সহযোগিতা করেছেন।’

কাজী আনোয়ার হোসেনের কালজয়ী ‘মাসুদ রানা’ সিরিজ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন আবদুল আজিজ। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন নবাগত রাসেল রানা। ইন্দোনেশিয়ার বালিতে একটি মারপিটের দৃশ্য ধারণ করা হলেই ছবির সব কাজ শেষ হয়ে যাবে। আগামী ডিসেম্বরে ছবিটি মুক্তির সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.